লিপস্টিক দেওয়ার কথা বলে সেই দুই শিশুকে…

রাজধানীর ডেমরায় দুই শিশু নুসরাত জাহান ও ফারিয়া আক্তার দোলাকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে হত্যা করেছেন দুই যুবক। পুলিশ বলছে, গ্রেফতারের পর দুই যুবক গোলাম মোস্তফা ও আজিজুল বাওয়ানী তাদের কাছে এ তথ্য দেন।

দুই যুবক জানান, লিপস্টিক দেওয়ার কথা বলে শিশু দুটিকে ফ্ল্যাটে নিয়ে তাঁরা ধর্ষণের চেষ্টা করেন। শিশুদের চিৎকারের শব্দ চাপা দিতে সাউন্ড বক্সে জোরে গান ছেড়ে দেন। ধর্ষণ করতে না পেরে শ্বাসরোধে তাদের হত্যা করেন তাঁরা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে পুলিশ বলছে, ‘ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে’ সাত ও পাঁচ বছর বয়সী মেয়ে দুটিকে গলায় গামছা পেঁচিয়ে হত্যা করে ওই দুইজন।

মঙ্গলবার যাত্রাবাড়ীর ভাঙা প্রেস ও ডেমরার মোল্লাব্রিজ এলাকা থেকে সিরামিক মিস্ত্রী গোলাম মোস্তফা (৩১) ও তার ফুপাতো ভাই আজিজুল বাওয়ানীকে (৩২) পুলিশ গ্রেফতার করে।

এরপর বুধবার সকালে রাজধানীর মিন্টো রোডে পুলিশের গণমাধ্যম কার্যালয়ে সংবাদ সম্মলন করে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন ওয়ারী বিভাগের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

ফারিয়া আক্তার দোলা (৭) ও নুসরাত জাহান (৫) নামের মেয়ে দুটি স্থানীয় একটি নার্সারি স্কুলে পড়ত। ডেমরার কোনাপাড়ায় শাহজালাল রোডে পাশাপাশি দুটি বাসায় থাকত তারা।

সোমবার (৭ জানুয়ারি) দুপুরে বাড়ির সামনে খেলার মধ্যেই নিখোঁজ হয় দুই শিশু। তাদের খোঁজ না পেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে এলাকায় মাইকিংও করা হয়।

এরপর রাতে স্থানীয় আবুলের বাড়ির নিচতলায় মোস্তফার বাসার খাটের নিচ থেকে মেয়ে দুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

সেদিন মোস্তফাকে বাসায় না পেলেও তার স্ত্রী আঁখি ও শ্যালককে আটক করা হয়। পরে তদন্তে নেমে মোস্তফা ও আজিজুলকে গ্রেফতার করা হয় বলে উপ পুলিশ কমিশনার ফরিদ উদ্দিন জানান।

ডিসি ফরিদ উদ্দিন বলেন, দুই শিশুকে লিপস্টিক দিয়ে সাজানোর লোভ দেখিয়ে ঘরে নিয়ে যায় মোস্তফা ও আজিজুল। এরপর দরজা বন্ধ করে তারা প্রথমে মোস্তফার লিপস্টিক দিয়ে দুই শিশুকে সাজিয়ে দেয়। এরপর ইয়াবা সেবন করে মোস্তফা ও আজিজ রুমে উচ্চস্বরে ক্যাসেট প্লেয়ার বাজিয়ে দুই শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। কিন্তু এসময় শিশুরা প্রচণ্ড চিৎকার শুরু করলে ফারিয়াকে গলাটিপে হত্যা করে আজিজুল। এরপর নুশরাত জাহানকে গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মোস্তফা।

ওয়ারী বিভাগের ডিসি আরও জানান, হত্যার পর আজিজুল পালিয়ে যায়। আর মোস্তফা দুই শিশুর মরদেহ নিয়ে বাসায় রেখে দেয়। মোস্তফার স্ত্রী সন্ধ্যার দিকে গার্মেন্টস থেকে বাসায় ফিরলে স্বামীর অস্বাভাবিক আচরণ দেখতে পান। মেঝেতে শিশুদের স্যান্ডেল পড়ে থাকতে দেখেন। দুইজনের চিৎকার চেঁচামেচিতে আশেপাশের লোকজন টের পায় এবং পুলিশকে খবর দেয়। তবে ঘটনার দিন সন্ধ্যার দিকেই মোস্তফা পালিয়ে যায়।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডেমরা জোনের সিনিয়র সহকারী কমিশনার (এসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম জানান, নিহত দুই শিশুর বাবা মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাদী হয়ে মোস্তফা ও আজিজুলের নামে ডেমরা থানায় একটি মামলা করেন। পরে রাতেই রাজধানীর ডেমরা ও যাত্রাবাড়ী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার রাতে রাজধানীর ডেমরার ‘নাসিমা ভিলা’র মোস্তফার ঘর থেকে শিশু নুসরাত জাহান (৪) ও ফারিয়া আক্তার দোলা (৫) লাশ পাওয়া যায়। এর আগে ওই দিন দুপুর থেকে তারা নিখোঁজ ছিল। এ ঘটনায় সেই বাড়ির গৃহকর্তা মোস্তফাকে প্রথমে খুঁজে না পেয়ে তার স্ত্রী ও শ্যালককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেওয়া হয়েছিল।

এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিহত নুসরাতের বাবা পলাশ হাওলাদার বাদী হয়ে ডেমরা থানায় একটি মামলা (নং-১২) দায়ের করেন। এরপর রাজধানীর ডেমরা ও যাত্রাবাড়ী এলাকায় অভিযান চালিয়ে মূল অভিযুক্ত গোলাম মোস্তফা ও তার চাচাতো ভাই আজিজুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

নিহত দোলার চাচা রাশেদুল ইসলাম জানান, সোমবার দুপুরে দোলা ও নুসরাত খেলতে খেলতে হারিয়ে যায়। তাদের খুঁজতে এলাকাজুড়ে মাইকিং করা হয়। পাশাপাশি ফেসবুকেও ফোন নম্বর ও ছবি দিয়ে প্রচারণা চালানো হয়। মাইকিংয়ের সময় একজন জানালেন- স্থানীয় মোস্তফা দুপুরের পর শিশু দুটিকে নিজ ফ্ল্যাটে নিয়ে গেছেন। পরে ওই যুবকের তথ্যের ভিত্তিতে তিনি (রাশেদুল) মোস্তফার খালাকে নিয়ে সেই ফ্ল্যাটে যান এবং দুই শিশুকে পড়ে থাকতে দেখেন। এ সময় ওই নারী মোস্তফা যাতে ঘর থেকে বের হতে না পারেন সে জন্য বাইরে থেকে তালা দিয়ে আশপাশের লোকজনকে খবর দেন। কিন্তু ততক্ষণে পালিয়ে যায় মোস্তফা।

রাজমিস্ত্রী মোস্তফা মাদকসেবী বলে জানিয়েছে পুলিশ। সে তার স্ত্রী এবং পাঁচ বছরের ছেলেকে নিয়ে নাসিমা ভিলায় সাবলেট থাকতো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*